Skip to Content

কিসমিস ভেজানো জল খাওয়ার উপকারিতা কী, তা দেখে নিন…

কিসমিস ভেজানো জল খাওয়ার উপকারিতা কী, তা দেখে নিন…

Be First!

স্বাস্থ্য বার্তা::
অনেকেই হয়তো জানেন না কিসমিস একটি স্বাস্থ্যগুণ সম্পন্ন খাবার। কিন্তু অনেকেই হয়তো জানেন না, কিসমিস ভেজানো জলও কিন্তু শরীরের পক্ষে বিশেষ উপকারি। দেখে নিন সেগুলি কী কী?

কিসমিস অনেকেরই খুব প্রিয়। আর এটি শরীরের পক্ষে উপকারিও বটে। এতে রয়েছে পটাশিয়াম, যা হার্টকে ভাল রাখে এবং খারাপ কোলেস্টরল দূর করতে সাহায্য করে। রয়েছে আয়রন যা রক্তাল্পতা কমাতে বিশেষভাবে সাহায্য করে। এছাড়াও রয়েছে কার্বোহাইট্রেট, যা এনার্জি জোগায়। মহিলারাই বিশেষত রক্তাল্পতায় ভোগেন, তাই চিকিৎসকরা বলেন কিসমিস খাওয়া মহিলাদের স্বাস্থ্যের পক্ষে বিশেষ উপকারি।

অনেকেই হয়তো জানেন না যে, কিসমিস ভেজানো জলও শরীরের পক্ষে খুবই উপকারি। কিসমিসের জল লিভার পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে। গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে, কিস ভেজানো জল খেলে শরীরে জৈব রাসায়নিক প্রক্রিয়া শুরু হয়। যার ফলে রক্ত পরিশোধিত হতে শুরু করে। সপ্তাহে কমপক্ষে চারদিন এই কিসমিস ভেজানো জল খেলে তা পেট পরিষ্কার রাখতে বিশেষভাবে সাহায্য করে। যাঁরা প্রায়শই পেটের গণ্ডগোলে ভোগেন তাঁদের জন্য এই টনিক বিশেষ উপকারি। উপরন্তু এর থেকে পাওয়া যায় ভরপুর এনার্জি, যা সারাদিন আপনাকে রাখবে প্রাণবন্ত।

শুধু তাই নয়, কিসমিস ভেজানো জল খেলে লিভারের পাশাপাশি কিডনিও খুব ভাল থাকে। আর কিডনি ও লিভার যদি ভাল থাকে তাহলে তা পরোক্ষভাবে হজমে সাহায্য করে।এর জন্য আপনাকে করতে হবে ছোট্ট একটি কাজ।২ কাপ জলে ১৫০ গ্রাম কিসমিস ভিজিয়ে রাখুন সারা রাত।অবশ্যই চেষ্টা করবেন গাঢ় রঙের কিসমিস কিনতে।হাল্কা রঙের কিসমিসে মেশানো থাকে ক্যামিক্যাল যা শরীরের পক্ষে ক্ষতিকর। কিসমিসগুলিকে ভালভাবে ধুয়ে, সারা রাত ভিজিয়ে রাখতে হবে। পরেরদিন সকালে কিসমিস ছেকে নিয়ে সেই জল হালকা গরম করে খালি পেটে খেয়ে নিন।

এর পরে আধ ঘন্টা আর অন্য কোনও খাবার খাওয়া চলবে না। সপ্তাহে কমপক্ষে চারদিন এই জল খেলে এক মাসের মধ্যেই তফাৎটা অনুভব করবেন।

পরবর্তী পোস্ট পেতে লাইক, কমেন্ট, শেয়ার করে একটিভ থাকুন। নতুনরা পেজে লাইক দিয়ে জয়েন করুন।
Share
Previous
Next

Leave a Reply

Your email address will not be published.